1. fakrul678@gmail.com : Fakrul islam Sumon : Fakrul islam Sumon
  2. mahedipramanik@gmail.com : Md. Mahedi Hasan Pramanik : Md. Mahedi Hasan Pramanik
  3. farukomar22@gmail.com : Omar Faruk : Omar Faruk
  4. onamikaafrinonu098@gmail.com : Onamika Afrin : Onamika Afrin
  5. admin@obirambanglanews24.com : Md. Shahjalal Pramanik : Md. Shahjalal Pramanik Sumon
  6. robinmahamudkhan007@gmail.com : Robin Mahamud Khan : Robin Mahamud Khan
  7. sapahar.sakib@gmail.com : Md. Sakib Hossen : Md. Sakib Hossen
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
বঙ্গবন্ধুর নামে সমিতি খুলে সাধারন মানুষের সাথে প্রতারনা আজ মহানবমী, বিষাদে পরিপূর্ণ দেবী দুর্গার বিদায়ের সুর সালথার বল্লভদী ইউপিতে বিতর্কিত প্রার্থীর মনোনয়নে তৃণমূলে ক্ষোভ আজ মহাঅষ্টমী, মধ্য রাতে সন্ধি পূজা ফরিদপুরের বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা ফুয়াদ গ্রেফতার কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভার আগে জেলা সার্কিট হাউজে আওয়ামীলীগ নেতা কর্মিদের উপর হামলা আহত -২০ কুড়িগ্রামে একদিনের জেলা প্রশাসক হিসেবে প্রতিকী দায়িত্ব গ্রহণ করলেন দশম শ্রেণীর ছাত্রী- ইতি শাহজাদপুরে প্রতিবন্ধী ছালমা হত্যার বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন প্রফেসর নাছিমউদ্দিন মালিথা’র প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল শাহজাদপুরে তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভালবাসায় সিক্ত নৌকার মাঝি প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা

জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা’র ৭৪তম জম্মদিন উপলক্ষে পল্লবী থানা ও রূপনগর থানা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

হাবিবুর রহমান, মিরপুর প্রতিনিধি
  • Update Time : সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৮৯ Time View

আজ সোমবার (২৮শে সেপ্টেম্বর) পল্লবী থানা ও রূপনগর থানা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুর রউফ নান্নু ও পল্লবী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম সারোয়ার আলম, রূপনগর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব সালাউদ্দিন রবিন ভিপি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ।

আলোচনা সভায় রূপনগর থানার আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জনাব সালাউদ্দিন রবিন ভিপি ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুর রউফ নান্নু ও পল্লবী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম সরোয়ার আলম বলেন-১৯৪৭ সালের ২৮শে সেপ্টেম্বর, বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার ঘর আলো করে টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম হয় বঙ্গবন্ধুর বড় সন্তান শেখ হাসিনার।টুঙ্গিপাড়ায় বাল্যশিক্ষা নেয়া বাংলাদেশের আশার প্রদীপ ১৯৫৪ সালে পরিবারের সাথে ঢাকায় চলে আসেন। ১৯৫৬ সালে তিনি টিকাটুলির নারীশিক্ষা মন্দির বালিকা বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। ১৯৬৫ সালে আজিমপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ম্যাট্রিক পাশ করেন। ১৯৬৭ সালে গভর্নমেন্ট ইন্টারমিডিয়েট গার্লস কলেজ(ইডেন কলেজ) থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন। শেখ হাসিনা ১৯৭৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।

ছাত্রজীবন থেকেই তিনি রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন। ১৯৬২ সালে আইয়ুব বিরোধী আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন । ১৯৬৬ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রার্থী হিসেবে ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রসংসদ নির্বাচনে ভিপি নির্বাচিত হন। তিনি এই কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং পরের বছর সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। শেখ হাসিনা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় সদস্য এবং ১৯৭৩ সালে ছাত্রলীগের রোকেয়া হল শাখার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৬৭ সালের ১৭ই নভেম্বর বিশিষ্ট পরমানু বিজ্ঞানী ডঃ এম. এ ওয়াজেদ মিয়ার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। সাংসারিক জীবনে তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ও প্রখ্যাত অটিজম বিশেষজ্ঞ সায়মা ওয়াজেদ পুতুল এর গর্বিত মাতা।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘৃন্য খুনি চক্র শেখ হাসিনা ও তার বোন শেখ রেহানাকে ছাড়া পরিবারের সকল সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যা করে। স্বামীর চাকুরীসূত্রে পশ্চিম জার্মানিতে অবস্থান করায় বেঁচে যান তাঁরা।

১৯৮১ সালের কাউন্সিলে সর্বসম্মতিক্রমে শেখ হাসিনাকে তাঁর অনুপস্থিতিতেই আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়। দীর্ঘ ছয় বছরের নির্বাসিত জীবন শেষ করে অবশেষে বঙ্গবন্ধু কন্যা ১৯৮১ সালের ১৭ মে দেশে ফিরে আসেন।

১৯৮৬-১৯৮৭ সালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ স্বৈরশাসক এরশাদের বিরুদ্ধে দুর্বার গণআন্দোলন গড়ে তোলেন। ১৯৮৬ সালে প্রথমবারের মতো বিরোধী দলীয় নেতা নির্বাচিত হন জননেত্রী শেখ হাসিনা । ১৯৯০ সালে গণআন্দোলনের মাধ্যমে এরশাদ সরকারকে ক্ষমতা থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করেন। ১৯৯১ সালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের তৎকালীন বৃহত্তম বিরোধীদল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন।

১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে খুনি জিয়া ও খন্দকার মোসতাকের জারিকৃত কুখ্যাত ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করে জাতির পিতার খুনীদের বিচারের মুখোমুখি করেন এবং পরবর্তী সময়ে স্বাধীনতা বিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে জাতিকে কলঙ্ক মুক্ত করেন।

১৯৯৭ সালের ২রা ডিসেম্বর পার্বত্য চট্টগ্রামে সুদীর্ঘ ২৫ বছরের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের অবসান ঘটিয়ে ‘ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তি’ করেন শেখ হাসিনা সরকার। উনার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও দাবির কারণে ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর জাতিসংঘ শিক্ষা,বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থা ইউনেসকো ২১ ফেব্রুয়ারীকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে এবং সদস্য দেশগুলো দিবসটি পালন করে থাকে।

২০০১-২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি জামাত জোটের সীমাহীন দুর্নীতি ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করেন এবং তথাকথিত ১/১১’র সেনা সমর্থিত অবৈধ সরকারের জেল,জুলুম উপেক্ষা করে নির্বাচন দিতে বাধ্য করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

বিভাগ সমূহ

সাইটের পেজ

© অবিরাম বাংলা নিউজ ২৪ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।এই সাইটের কোনো তথ্য বা ছবি অনুমতি ব্যতিত ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। ©