1. fakrul678@gmail.com : Fakrul islam Sumon : Fakrul islam Sumon
  2. mahedipramanik@gmail.com : Md. Mahedi Hasan Pramanik : Md. Mahedi Hasan Pramanik
  3. farukomar22@gmail.com : Omar Faruk : Omar Faruk
  4. onamikaafrinonu098@gmail.com : Onamika Afrin : Onamika Afrin
  5. admin@obirambanglanews24.com : Md. Shahjalal Pramanik : Md. Shahjalal Pramanik Sumon
  6. robinmahamudkhan007@gmail.com : Robin Mahamud Khan : Robin Mahamud Khan
  7. sapahar.sakib@gmail.com : Md. Sakib Hossen : Md. Sakib Hossen
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
রাজারহাটে জলবায়ু ঝুকিপূর্ণ ফোকাস গ্রুপের সাথে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ভেঙ্গে গেছে সাঁকো, চরম দূর্ভোগে ১২ গ্রামের মানুষ সিরাজগঞ্জে ছিনতাইকারী ও অজ্ঞান পার্টির ১৪ সদস্য আটক নালী ইউনিয়নের আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে এমপি দূর্জয় জন্মদিন উদযাপন উলিপুরে পন্ডিত মহির উদ্দিন স্কুলে ছাত্র ছাত্রী দের কাছে অবৈধ ভাবে টাকা উত্তলন-ফলোআপ নিউজ। প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত মৃৎশিল্পীরা তিস্তার ভাঙ্গন ঠেকাতে এলাকাবাসীর নিজস্ব অর্থায়নে বাশ ও গাছ দিয়ে বান্ডাল নির্মাণ সিরাজগঞ্জে কাভার্ড ভ্যান-অটো ভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২ শাহজাদপুরে বন্যায় ভেঙ্গে পড়ল ৩৬ লাখ টাকার ব্রীজ মসিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে প্রায় বিলুপ্তির পথে বাঁশ ও বেত শিল্প

কুষ্টিয়ায় রোজ হলিডে পার্কের গাফিলতি দেখার কেউ নেই!

বেলাল খান, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি
  • Update Time : সোমবার, ২২ মার্চ, ২০২১
  • ৫৪৩ Time View

কুষ্টিয়ায় রোজ হলিডে পার্কের গাফিলতি যেন দেখার কেও নেই। দিন দিন বাড়ছে দুর্ঘটনা। অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল ও নিজের নাম প্রচারের জন্য গড়ে তোলা এই হলিডে পার্কটি কুষ্টিয়াবাসীদের হুমকির কারণ। রাজনৈতিক ব্যক্তিদের সাথে আতাত করে বিনোদনের নামে আসলে কি গড়ে তোলা হয়েছে তা নিয়ে নানা প্রশ্ন।

কুষ্টিয়া শহর থেকে অদূরে বাইপাস সড়কের গা ঘেঁষে গড়ে উঠেছে বিনোদন কেন্দ্র রোজ হলিডে পার্ক এন্ড রিসোর্ট। এই বিনোদন কেন্দ্রটি এখন নাম কামানোর সুযোগের সাথে সাথে করে চলেছে অসৎ প্রন্থা।

বটতৈল থেকে ত্রিমোহনী মুখী বাইপাস সড়কের বামপাশে, মূল সড়ক থেকে ৫০ মিটার দূরত্বে গড়ে উঠেছে বিনোদন কেন্দ্র রোজ হলিডে পার্ক এন্ড রিসোর্ট। মূল সড়ক থেকে পার্কে প্রবেশ করতে এবং পার্ক থেকে মূল সড়কে প্রবেশ করতে প্রতিনিয়তই ঘটছে দুর্ঘটনা। দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সড়ক বিভাগ ও পার্ক কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়নি কোনো উদ্যোগ এবং নেই কোন গতিরোধক ও সতর্কতামূলক সাইন বোর্ড। যার কারণে প্রায় দুর্ঘটনায় কবলিত হতে হচ্ছে পার্কে ঘুরতে আসা বিনোদন প্রেমীদের।

গত ২১মার্চ দুপুরে পার্কে ঘুরতে আসা এক জোড়া উঠতি বয়সী ছেলে- মেয়ের অসাবধানতার কারণে দূর্ঘটনায় কবলিত হতে হয়েছে রশিদ গ্রুপের চাল বোঝাই একটি ট্রাককে। ১৩টন চাল বোঝাই ট্রাকটি পোড়াদহ রশিদ গ্রুপের মিল থেকে চাল বোঝাই করে যমুনা সেতু হয়ে ঢাকায় যাবার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। পথমধ্যে কুষ্টিয়া ত্রিমোহনী বাইপাস সড়কের রোজ হলিডে পার্ক এন্ড রিসোর্ট এর বাইপাস সংলগ্ন গেটের সামনে আসলে দুর্ঘটনা কবলিত হয়।

জানা যায়, বিনোদনের এক রুমে সময় কাটাতে লাগে ৫-৬ হাজার টাকা। ঠিক এমনি পার্কে ঘুরতে আসা এক জোড়া উঠতি বয়সী ছেলে- মেয়ে নিজেদের বিনোদন নেওয়া শেষ করে পার্কের গেট থেকে বাইক নিয়ে যাত্রা করে বাইপাস এর মূল সড়কে উঠার সময় বাইকের পিছনে বসে থাকা মেয়েটি হটাৎ অসাবধানতাবশত পরে যায় এবং বাইকের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাইক সহ চালক মূল সড়কের মাঝামাঝি গিয়ে পরে যায়। এদিকে ত্রিমোহনী অভিমুখী রশিদ গ্রুপে ট্রাকটি বাইক ও বাইক চালককে বাঁচাতে ও বাইপাস মূল সড়ক সংলগ্ন উপর হয়ে পরে থাকা মেয়েটিকে বাঁচাতে চাল বোঝাই ট্রাকটি ক্যানেল এর ভিতর নামিয়ে দিতে বাধ্য হয়। এতে ট্রাকটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাছাড়া ট্রাকের চালক ও তার সহকারী মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাদেরকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় উপস্থিত জনতা জানায়, ট্রাকটির চালক অনেক দক্ষ ছিল তাই এ যাত্রায় বাইক চালক ও পিছনে বসে থাকা মেয়েটি প্রাণে বেঁচে গেছে।

তারা আরো বলেন, পার্কের বাইপাস সংলগ্ন গেটের কাছে গতিরোধক ও সতর্কতামূলক কোন সাইনবোর্ড না থাকায় এভাবেই প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন পার্কে বিনোদন নিতে আসা মানুষজন। সেই সাথে এইসব মানুষজনের কারণে দুর্ঘটনায় পড়তে হচ্ছে বাইপাস রোডে চলাচলকারি দূরপাল্লার যানবাহনগুলোকে। প্রতিদিন সকাল থেকে শুরু করে সন্ধ্যা অব্দি (সরকারি ছুটির দিন ব্যতীত) উঠতি বয়সী যুবক যুবতীদের ভিড় জমে এই পার্কে। শহর থেকে বেশ দূরে কোলাহল মুক্ত হওয়ায় উঠতি বয়সী ছেলেমেয়েরা এই পার্কে বেশি আসে। তাছাড়া এখানে আসলে একটি বয়সী যুবক-যুবতীদের অভিভাবক ও পরিচিতজনদের চোখে পড়ার সম্ভাবনা অনেক কম থাকে।

সেজন্যই এখানে বেশি ভিড় হয়ে থাকে। এখানে সাধারণত যে সকল উঠতি বয়সী যুবক যুবতীরা আসেন তারা অধিকাংশই যাতায়াতের যানবাহন হিসেবে মোটরবাইককেই বেছে নেন। অনেকেই আবার ব্যাটারি চালিত ভাড়ার যানবাহন নিয়েও এখানে প্রবেশ করেন। মূল সড়ক থেকে পার্কে প্রবেশ করার সময় সেখানে কোন গতিরোধক তৈরি বা পার্ক কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে সতর্কতামূলক সাইনবোর্ড লাগানো হয়নি। আবার অনেকে মনে করেন, পার্ক কর্তৃপক্ষ চাইলে এখানে নিজ খরচে একজন বেসরকারি ট্রাফিক নিয়োগ দিতে পারতেন। কিন্তু তারা সেটাও করেননি। যার কারণে প্রতিনিয়ত বাড়ছে দুর্ঘটনা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

বিভাগ সমূহ

সাইটের পেজ

© অবিরাম বাংলা নিউজ ২৪ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।এই সাইটের কোনো তথ্য বা ছবি অনুমতি ব্যতিত ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। ©